ঢাকা মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪ 

শাওমি রেডমির সতর্কতা

স্ক্রিন প্রোটেক্টরই ফোনের জন্য ক্ষতিকর

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৫:৩২, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

শেয়ার

স্ক্রিন প্রোটেক্টরই ফোনের জন্য ক্ষতিকর

বর্তমান সময়ে স্মার্ট ফোন আমাদের দৈনন্দিন জীবনকে বিভিন্নভাবে প্রভাবিত করছে। ফোন ছাড়া যেন কোন কাজই হয় না। ফোন আমাদের জীবনের অংশ হয়ে গিয়েছে। তাইতো এই ফোনটিকে প্রোটেক্ট করতে আমরা বিভিন্ন ধরনের প্রটেক্টিভ ইকুপমেন্ট ব্যবহার করি। এরমধ্যে আমরা সবচেয়ে বেশি যে এক্সেসরিজগুলো ব্যবহার করি তা হল ফোনের কাভার এবং স্ক্রিন প্রটেক্টর। এসব এক্সেসরিজগুলোই ফোনের সবচেয়ে বড় ক্ষতির কারণ হতে পারে। সম্পূর্ণভাবে অকেজো করে ফেলতে পারে আপনার প্রিয় প্রয়োজনীয় ডিভাইসটি। তাই প্রটেকটিভ ইকুপমেন্ট ব্যবহারের ক্ষেত্রে আমাদের আরও সচেতন হতে হবে বলে সতর্ক  বার্তা দিচ্ছেন প্রযুক্তিবিদরা। 

অনেকেই মনে করেন, ফোনের স্ক্রিন প্রটেক্ট করার জন্য একটু দামি এক্সেসরিজগুলোই বোধহয় ভালো। এমন ধারণা সবসময় সত্য নয়, কিছু কিছু ক্ষেত্রে দামি এক্সেসরিজগুলো আপনার ফোনের সবচেয়ে বড় ক্ষতির কারণ হতে পারে। ফোনের ডিসপ্লেকে প্রটেক্ট করতে আমরা যে এক্সেসরিজ ব্যবহার করি। সেগুলোর মধ্যে বেশ কিছু স্ক্রিন গার্ড ফোনের জন্য মারাত্মক ক্ষতির কারণ হতে পারে। 

আশ্চর্যের বিষয় হলো, সাধারণত আমরা যেসব সস্তার স্কিনগার্ড ব্যবহার করি সেগুলো ফোনের খুব বেশি ক্ষতি করে না। তবে এর মধ্যে লিকুইড ইউ-ভি স্ক্রিন গার্ডগুলো ফোনের বেশ ক্ষতি করতে পারে। নষ্ট করে দিতে পারে আপনার ফোনের ওয়ারেন্টি পর্যন্ত। এছাড়া, বড় ধরনের ফিজিক্যাল ড্যামেজের শিকার হতে পারে আপনার প্রিয় স্মার্টফোনটি। 

এ বিষয়ে সোশ্যাল মিডিয়া হেন্ডেলে শাওমির সহযোগী সংস্থা রেডমি, স্মার্টফোনে স্ক্রিন গার্ড ব্যবহার করা সম্পর্কে সতর্ক করে জানিয়েছে, ইউজাররা সাধারণত স্ক্রিন প্রটেক্ট করার জন্য যে ধরনের স্ক্রিন গার্ড ব্যবহার করে সেগুলো ফোন ডিসপ্লের জন্য বেশ ক্ষতিকর। এছাড়া, ব্যবহারকারীরা যে ধরনের লিকুইড ইউ ভি অ্যাডহেসিব স্ক্রিন গার্ড ব্যবহার করে, সেগুলো ফোনের বেশ কিছু ফিজিক্যাল ড্যামেজের কারণ হতে পারে। লিকুইড ইউ ভি স্ক্রিন গার্ড সাধারণত কার্ভ বা বাঁকানো ডিসপ্লের স্মার্টফোনের ব্যবহারের জন্য জনপ্রিয়।

এ ধরনের স্ক্রিন গার্ডে লিক্যুইড ব্যবহারের ফলে বাঁকানো ডিসপ্লের ফোনে বেশ সুন্দরভাবে আটকে থাকে। তাই ইউজারদের কাছে এ ধরনের স্কিন গার্ড বেশ জনপ্রিয়। 
তবে রেডমি জানিয়েছে, এ ধরনের স্ক্রিন গার্ডে ব্যবহৃত অ্যাডহেসিভ লিক্যুইড ফোনের মধ্যে প্রবেশ করে ফোনের বিভিন্ন যন্ত্রাংশ নষ্ট করে ফেলতে পারে। এ ধরনের লিকুইড সাধারণত ফোনের কিছু যন্ত্রাংশের বেশি ক্ষতি করে। যেমন, ফিজিক্যাল কি, চার্জিং পোর্ট, স্পিকার ও ব্যাটারি। এছাড়াও, টাচ রেসপন্স কমে যেতে পারে, ফিজিক্যাল বাটনগুলো কার্যক্ষমতা হারাতে পারে, এবং ফোন বারবার রিস্টার্ট হতে পারে। 

রেডমি আরও জানায়, এ ধরনের লিক্যুইড, ফোনের মধ্যে প্রবেশ করলে ফোনের ওয়ারেন্টিতেও এর প্রভাব পড়তে পারে। ব্যবহারকারীর ফোনে যদি এ ধরনের প্রটেক্টর পাওয়া যায় তবে ওয়ারেন্টি বাতিল হওয়ারও সম্ভাবনা রয়েছে।

তবে ইউজারদের বিকল্প স্ক্রিন গার্ড ব্যবহারের ক্ষেত্রে পরামর্শ দিয়ে সংস্থাটি জানায়, ইউজাররা চাইলে টেম্পারড গ্লাস, নন-টেম্পারড গ্লাস, ইলেক্ট্রোস্ট্যাটিক ফিল্ম ব্যবহার করতে পারবেন। এসব স্ক্রিন গার্ড ব্যবহারে ইউ ভি ভিত্তিক আঠার প্রয়োজন হয় না। তাই কোন লিকুইড ভিতরে প্রবেশ করে ফোনের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, স্মার্টফোনে কোন ধরনের স্কিন গার্ড ব্যবহার করার প্রয়োজন নেই। কারণ স্মার্টফোন তৈরি করার সময় কোম্পানিগুলো তাদের ফোন কোন ধরনের কাভার এবং স্ক্রীন গার্ড ছাড়া বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষা নিরীক্ষা করে বাজারে নিয়ে আসে। এছাড়া, ফোনের স্ক্রিনে তারা বিভিন্ন ধরনের প্রোটেকশন ব্যবহার করে। এবং প্রতিনিয়ত তারা ফোনের স্ক্রিন, ব্যাকশিল্ড এবং বডির প্রোটেকশন আরো বেশি আপডেট করে চলেছে। আরো বেশি ডিউরেবল এবং মজবুত করে তৈরি করছে ফোনগুলো। তাই স্মার্ট ফোনগুলিতে আলাদা করে প্রটেক্টিভ এক্সেসরিজ ব্যবহার থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। 

live pharmacy
umchltd

সম্পর্কিত বিষয়: