ঢাকা মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪ 

‘প্রত্যাগত অভিবাসী কর্মীদের পুন:প্রতিষ্ঠায় প্রশিক্ষণের বিকল্প নেই’

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২০:৫০, ২ মার্চ ২০২৪

আপডেট: ২১:২৩, ২ মার্চ ২০২৪

শেয়ার

‘প্রত্যাগত অভিবাসী কর্মীদের পুন:প্রতিষ্ঠায় প্রশিক্ষণের বিকল্প নেই’

প্রত্যাগত অভিবাসী কর্মীদের পুন:একত্রীকরণের লক্ষ্যে ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের বাস্তবায়নাধীন জঅওঝঊ প্রকল্প আয়োজিত রেফারেল ও আরপিএল বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকাল ১০টায় রাজধানীর  ইস্কাটনস্থ প্রবাসী কল্যাণ ভবনের অমর একুশে সম্মেলন কক্ষে এই সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। প্রকল্প পরিচালক সৌরেন্দ্র নাথ সাহার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের মহাপরিচালক মো. হামিদুর রহমান। তিনি জঅওঝঊ প্রকল্প বাস্তবায়নে টিটিসি/ডিইএমও’র কর্মকর্তাদের সহযোগিতা অব্যাহত রাখার আহবান জানান।

সমাপনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর মহাপরিচালক (গ্রেড-১) সালেহ আহমদ মুজাফফর। তিনি বিএমইটি’র আওতাধীন সকল কর্মকর্তাকে প্রকল্প বাস্তবায়নে (রেফারেল/আরপিএল) সহযোগিতা অব্যাহত রাখার নির্দেশনা প্রদান করেন।

অনুষ্ঠানে বিভিন্ন জেলা থেকে আমন্ত্রিত ৪০টি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের অধ্যক্ষ এবং বিএমইটি’র পরিচালক (প্রশাসন ও অর্থ) মাসুদ রানা, উপ-পরিচালক মোহাম্মাদ আলী, চট্টগ্রাম, খুলনা, ময়মনসিংহ ও ঢাকা জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিসের সহকারী পরিচালকসহ আইওএম’র প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। জঅওঝঊ প্রকল্প ও ওঙগ-এর আওতায় বাস্তবায়িত এ সেমিনারে ওঙগ ইধহমষধফবংয প্রতিনিধি দল উপস্থিত ছিলেন। সেমিনারে প্রকল্প সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম উপস্থাপন করেন উপ-প্রকল্প পরিচালক মো. জাহিদ আনোয়ার।

সেমিনারে টিটিসি’র অধ্যক্ষবৃন্দ ফিরে আসা অভিবাসী কর্মীদের সমাজে পুন:প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে তাদের মতামত তুলে ধরেন। বলেন, প্রত্যাগত অভিবাসী কর্মীদের টেকসই পুন:কত্রীকরণে প্রশিক্ষণের কোন বিকল্প নেই। যদি যথাযথভাবে প্রশিক্ষণ প্রদান করা যায় সেক্ষেত্রে তাদের কর্মসংস্থান নিশ্চিত করা সম্ভব হবে। অধ্যক্ষগণ এসব অভিবাসী কর্মীদের টিটিসি প্রদত্ত বিভিন্ন প্রশিক্ষণে ভর্তির ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে মর্মে অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

এছাড়া বিদেশে গিয়ে দক্ষতা অর্জনকারী কর্মীদের আরপিএল এর আওতায় টিটিসি’র মাধ্যমে সনদের ব্যবস্থাও রয়েছে। ফলে দক্ষতা সনদ পাওয়া কর্মীরা দেশে-বিদেশে উচ্চ বেতনে কাজের সুযোগ পাবে।

উল্লেখ্য, দুই লাখ কর্মীর পুন:একত্রীকরণে প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ড। সারা দেশে ৩০টি ওয়েলফেয়ার সেন্টারের মাধ্যমে ৬৪ জেলায় প্রকল্পের কার্যক্রম চলছে। প্রকল্পের আওতায় কাউন্সিলিং ও রেফারেল পরবর্তীতে প্রতি কর্মীকে ১৩ হাজার ৫০০ টাকা করে মোট ২ লাখ কর্মীকে প্রণোদনা দেয়া হবে। ২০১৫ সাল হতে বিদেশফেরত কর্মীরা প্রকল্পের সুবিধা প্রাপ্ত হবে।  
 

 

live pharmacy
umchltd

সম্পর্কিত বিষয়: