ঢাকা মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪ 

খৎনা দেওয়ার সময় শিশুর মৃত্যু; কিশোরের দায় স্বীকার

বাগেরহাট সংবাদদাতা 

প্রকাশিত: ২১:১৬, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

আপডেট: ২১:১৭, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

শেয়ার

খৎনা দেওয়ার সময় শিশুর মৃত্যু; কিশোরের দায় স্বীকার

বাগেরহাটের চিতলমারীতে তিন বছরে শিশু শিহাব শেখের হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে কিশোর হামিম শেখ (১৭)। হামিম আদালতকে জানায়, হাত-পা ও মুখ বেঁধে খৎনা দেওয়ায় শিশু শিহাব শেখের মৃত্যু হয়েছে।

এর আগে, বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে তাকে বাগেরহাট আদালতে সোপর্দ করলে, সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ আছাদুল ইসলাম হামিমকে যশোর কিশোর সংশোধোনাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা চিতলমারী থানার ওসি তদন্ত মোঃ তরিকুল ইসলাম জানান, হত্যার দায় স্বীকার করে কিশোর হামিম আদালতে জবানবন্দী দিয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে হামিমের মধ্যে খৎনা দেওয়ার কৌতূহল ছিল। এজন্য সে শিহাবকে বাছাই করে। বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে শিহাবকে ডেকে ঘরের মধ্যে নিয়ে যায় হামিম। শিহাবের হাত-পা ও মুখ বেঁধে একটি কাঁচি দিয়ে খৎনা দেওয়ার উদ্দেশ্যে শিহাবের পুরুষাঙ্গ কেটে ফেলে। এক পর্যায়ে শিশু শিহাব অচেতন হয়ে পড়ে এবং সেখানেই তার মৃত্যু হয়। 

মোঃ তরিকুল ইসলাম আরও বলেন, বৃহস্পতিবার বাগেরহাট ২৫০ শয্যা হাসপাতাল মর্গে শিশু শিহাবের মৃতদেহের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। কিশোর হামিমকে আদালত কিশোর সংশোধোনাগারে প্রেরণের আদেশ দিয়েছে আদালত।

গত বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে শিশু শিহাব বাড়ির উঠোনে খেলছিল। হামিম শেখ ডেকে নিয়ে নিজ ঘরের মধ্যে হাত-পা ও মুখ বেঁধে শিশু শিহাবকে হত্যা করে। অনেক খোঁজাখুঁজির পরে না পেয়ে, রাতে মাইকিংও করে স্থানীয়রা। পরবর্তীতে হামিমের ঘর সংলগ্ন শৌচাগারের পাশ থেকে শিশু শিহাবের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ওই রাতেই পুলিশ অভিযুক্ত হামিম শেখকে আটক করে। এ ঘটনায় শিশু শিহাবের মা সুমি বেগম বাদী হয়ে কিশোর হামিমকে আসামি করে চিতলমারী থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

নিহত শিশু শিহাব চিতলমারী উপজেলার হিজলা গ্রামের ফরহাদ শেখের ছেলে। অভিযুক্ত কিশোর হামিম শেখ (১৭) একই এলাকার রমজান শেখের ছেলে।  

দ্য নিউজ/ এনজি

live pharmacy
umchltd

সম্পর্কিত বিষয়: